WIFI হ্যাক করে ব্যবহার করছেন ! তাহলে দেখে নিন কি হতে পারে - দেশ-বিডি২৫

WIFI হ্যাক করে ব্যবহার করছেন ! তাহলে দেখে নিন কি হতে পারে

WIFI হ্যাক করে ব্যবহার করছেন ! তাহলে দেখে নিন কি হতে পারে আপনার সাথে ।

wifi

WIFI হলো ইন্টারনেট জগতে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের জন্য অনুপ্রেরণার নাম। কেননা ওয়াইফাই নামটা শুনলেই যেন, ইউজারদের মনে অন্যরকম একটি চাহিদার সৃষ্টি হয়।

যাদের মোবাইল, ল্যাপটপ, অথবা কম্পিউটারে WIFI এর পাসওয়ার্ড কানেক্ট করা থাকে, তারা তো সর্বদাই ওয়াইফাই কানেকশনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারে।

WIFI এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যাবহারে এখন সর্বজনিত হওয়ায়, ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড চাওয়া এখন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে সব জায়গায় কি আর পাসওয়ার্ড চাওয়া বা পাওয়া যায়? তাইতো অনেকে চেষ্টা করে ফ্রীতে হ্যাক করে ওয়াইফাই চালানোর।

আর যাদের কানেক্ট করা নেই, অথবা বন্ধু-বান্ধবের কাছ থেকে কোনো ভাবেই তাদের ব্যবহার করা। ওয়াইফাই এর পাসওয়ার্ড নিতে পারছে না, তারা চেষ্টা করে বিভিন্ন উপায়ে সে, পাসওয়ার্ড জানার জন্য।

আবার অনেকেই চেষ্টা করে পাসওয়ার্ড হ্যাক করার জন্য। যারা বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড হ্যাক করে, নিজের ফোনে কানেক্ট করে তারা সাবধান। যে, কোন সময় বিপদে পরতে পারেন।

আপনি ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড হ্যাক করে নিজেকে হয়তোবা মনে করবেন অনেক কিছু। উৎসাহের সঙ্গে অন্যকে বলতে পারবেন আমি ওর পাসওয়ার্ড হ্যাক করেছি। এই হ্যাক করার সিস্টেমটি অবশ্যই আপনি কোন থার্ড পার্টি অ্যাপ, অথবা কোন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে করেছেন।

যার কারণে, আপনি যে অ্যাপস ব্যবহার করে এটি করেছেন, সেটার জন্য আপনি আপনার বিপদ আপনার ঘরের দরজায় সময় ডেকে নিয়ে এসেছেন। কারণ, আপনার ফোনটা হ্যাকাররা খুব সহজেই কন্ট্রোল করতে পারবে। নিয়ে নিতে পারবে আপনার ফোনে থাকা সমস্ত তথ্য আর ফেলতে পারবে আপনাকে বিপদে। তাই অন্যের পাসওয়ার্ড হ্যাক করা থেকে বিরত থাকুন।

এ জন্য এই কাজ থেকে সাবধান হতে বলেছেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ যে কোন সময় ফাঁস হয়ে যেতে পারে আপনার গোপন তথ্য। হ্যাকার হানায় আপনার ফোন, ল্যাপটপ ইত্যাদী চলে যেতে পারে অন্যের জিম্মায়।

ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহার করার ক্ষেত্রে বিপদ অনেক। ফলে খুব সহজেই হ্যাকাররা হামলা চালাতে পারবে। সহজেই কারো ক্রেডিট কার্ডের তথ্য, ব্যাংকের তথ্য, পাসওয়ার্ড, চ্যাট মেসেজ, ইমেইল প্রভৃতি সামনে চলে আসবে।

সেক্ষেত্রে এয়ারপোর্ট, স্টেশন বা নতুন কোন পরিবেশে ফ্রি ওয়াই-ফাই ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্কও করেছেন বিশেষজ্ঞারা। তারা জানিয়েছেন, খুব প্রয়োজন না থাকলে এই স্থান গুলিতে ওয়াই-ফাই ব্যবহার না করাই ভালো।

বাড়ির ওয়াই-ফাইয়ের ক্ষেত্রে এসএসআইডি ডিসএ্যাবেল করে রাখার যুক্তি দিয়েছেন বিশেষজ্ঞারা। তাদের যুক্তি এর ফলে হ্যাকারদের নজরে পড়বে না কারও ওয়াই-ফাই।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *